বয়সের সাথে সাথে প্রতিটি মানুষই শারীরিকভাবে বেড়ে ওঠে। সময়ের সাথে শারীরিক ও পারিপার্শ্বিক পরিবর্তন এবং জীবনের নানা অভিজ্ঞতা ভূমিকা রাখে মানসিক পরিবর্তনে। এসব পরিবর্তনের পেছনে রয়েছে একটি সুনির্দিষ্ট প্রক্রিয়া, যাকে বলা হয় বয়ঃসন্ধি। এটি এমন একটি প্রক্রিয়া যার মধ্য দিয়ে একজন মানুষের শারীরিক, যৌন ও মানসিক দিক থেকে এমন কিছু পরিবর্তন আসে যা তাকে কৈশোরের ধাপ পেরিয়ে প্রাপ্তবয়স্ক মানুষে রূপান্তরিত করে।

এক কথায় বলা যায়, বয়ঃসন্ধি বলতে যৌন পরিপূর্ণতার জন্য শরীরে যে সকল পরিবর্তন আসে সেটিকে বোঝায়। এ সময় একটি মেয়ে প্রজননক্ষম হয় যদিও তা বিয়ের জন্য বা সন্তানধারণের জন্য শারীরিক ও মানসিক পূর্ণাঙ্গতা অর্জন করা নয়।

মেয়েদের ক্ষেত্রে সাধারণত ৮ থেকে ১৩ বছরের মধ্যে বয়ঃসন্ধি প্রক্রিয়া শুরু হয়। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে এর তারতম্যও রয়েছে। অনেকের বয়ঃসন্ধি প্রক্রিয়া তুলনামূলক কম বয়সে শুরু হয় আবার অনেক সময় ১৩ বছরের পরেও হয়ে থাকে যা কিনা ১৯ বছর পর্যন্ত গড়াতে পারে। তবে আমাদের দেশের মেয়েদের শারীরিক গঠনের পরিবর্তন সাধারণত ১০ থেকে ১৩ বছর বয়সের মধ্যে শুরু হয়। এ সময়টা হলো মেয়েদের বয়ঃসন্ধিকাল।

এর শুরুটা হয় যখন মস্তিষ্ক বিভিন্ন হরমোনের মাধ্যমে গোনাডে (মেয়েদের ক্ষেত্রে ডিম্বাশয় ও ছেলেদের ক্ষেত্রে শুক্রাশয়) সংকেত পাঠায় । যার ফলে, গোনাড বিভিন্ন ধরনের হরমোন উৎপাদন শুরু করে এবং তা মস্তিষ্ক, হাড়, পেশি, ত্বক, স্তন এবং প্রজনন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

বয়ঃসন্ধিকাল হচ্ছে শৈশব ও সাবালকত্বের মধ্যবর্তী একটি শারীরিক, মানসিক ও সামাজিক অবস্থার পরিবর্তিত রূপ।

তথ্য উৎসঃ

http://bd-tips.com

https://en.wikipedia.org

https://www.menstrupedia.com

http://www.who.int

https://nhd.gov.bd

কমেন্ট করুন

আপনার ইমেইল অ্যাড্রেসটি প্রকাশ করা হবে না